Categories
লাইফস্টাইল

মেছতা দূর করার উপায়

মেছতা দূর করার উপায় – মেছতা বড় বেহায়া সংক্রামক! একবার মুখে বসতে পারলে আর ওঠাউঠির নাম নেই। মেছতা দূর করতে কতজনের কত রকমই না প্রচেষ্টা।

তবে মেছতা দূর করতে বাজারের বিভিন্ন কেমিক্যাল উপাদানের চেয়ে ঘরোয়া উপায়ই উত্তম।

মুখের সৌন্দর্য ধরে রাখতে চাইলে নিয়মিত মুখের ত্বকের সঠিক যত্ন নেয়া প্রয়োজন।

কিন্তু মুখের নানা রকম দাগ নিয়ে অনেকেই দুশ্চিন্তায় ভোগেন। কিন্তু দাগ কীভাবে দূর হবে, সেটি জানা নেই!

টমেটো

টমেটোর ভিটামিন সি মেছতা দূর করতে অনেক উপকারী।

একটা টমেটো কেটে মেছতার অংশটুকু প্রতিদিন ৫ থেকে ৮ মিনিট ম্যাসাজ করুন। এতে মেছতা খুব দ্রুত হালকা হয়।

দারচিনি ও দুধের সর

এক চিমটি দারুচিনি গুড়ো এবং সামান্য দুধের সর হাতের তালুতে আঙুল নিয়ে ভালো করে মেশান। এরপর এই মিশ্রণটি মেছতার দাগের ওপর লাগান।

এরপর ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে শুকিয়ে এলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে আলতো ঘষে তুলে ফেলুন। এটি প্রতদিন ঘুমানোর আগে ব্যাবহার করলে দ্রুত মেছতা দূর হয়।

লেবুর রস ও চিনি

প্রথমে একটা লেবু চিপে নিয়ে তা পরিষ্কার তুলা দিয়ে সরাসরি মেছতার উপর লাগিয়ে নিন।

আরো পড়ুনঃ   মেকআপ করার জিনিসের নাম

এরপর ১৫ মিনিট পর আরেক টুকরা লেবুর উপর আধা চামচ চিনি ছড়িয়ে নিয়ে মেছতার উপর হালকা করে ৫ মিনিট ঘষে নিন।

এরপর ঠান্ডা পানিতে মুখ ধুয়ে নিন। এটি প্রতিদিন ব্যবহারে দ্রুত মেছতা দূর হয়।

ছোলার ডাল

যাদের মুখে বয়সের জন্য মেছতা পড়ে তারা ছোলার ডাল ব্যবহার করে অনেক উপকার পেতে পারেন। এজন্য প্রথমে ছোলার ডাল সারাদিন ভিজিয়ে রেখে দিন।

এরপর আধা কাপ ছোলার ডালের সাথে ১ চামচ মধু মিশিয়ে পানির পরিবর্তে কাচা দুধ দিয়ে মিহি করে ব্লেন্ড করে নিন।

এবার এটি মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি মেছতার সাথে সাথে ত্বকের রিঙ্কেলস দূর করতেও সাহায্য করে।

পেঁয়াজের রস

একটি ছোট পেঁয়াজ গ্রেট করে নিন। এবার চিপে পেঁয়াজের রস বের কর নিন। সেই রসের সাথে ১ চা চামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার মেশান।

এই জুসটি মেছতার উপর লাগিয়ে নিয়ে ৩-৪ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। ভালো রেজাল্টের জন্য প্রতিদিন ব্যবহার করুন।

টক দই

১ টেবিলচামচ টক দই ও ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে মাস্ক তৈরি করে নিন। এবার পরিষ্কার মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন।

আরো পড়ুনঃ   চুল সোজা করার উপায়

১০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এই মাস্কটি প্রতিদিন একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

মেছতার দাগ দুর করে ফর্সা ত্বক করার জন্য একদম পারফেক্ট কম্বিনেশন হলো টকদই ও মধু।

মেছতা ত্বকে কি ধরনের প্রভাব ফেলে

মেছতা এমন একটি সমস্যা যা আমাদের ত্বকের উপর বেশ খানিকটা বিরূপ প্রভাব ফেলে।মেছতার ফলে আমাদের ত্বকের ছোপ ছোপ দাগ পড়ে যায় যা স্থায়ী দাগ হিসেবে আমাদের ত্বক এ দেখা যায়।

এর প্রভাবে আমাদের বেশ বিপত্তির মধ্য দিয়ে যেতে হয়।সাধারণত মেছতার কোন সঠিক কারণে আজ পর্যন্ত কেউ খুঁজে পায় নি।

তবে প্রচন্ড সূর্যের আলো,বংশগত নানা ধরণের সমস্যা,গর্ভধারণ, জন্মনিয়ন্ত্রণ আরও নানা ধরণের সমস্যার পার্শপ্রতিক্রিয়ার ফলেও আমাদের ত্বক এ এই মেছতা দেখা যায়।

তবে যাদের মেছতা ত্বকের উপরের অংশে রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে মেছতা কখনো না কখনো ভালো হয়ে যায়।

কিন্তু যাদের ক্ষেত্রে ত্বকের ভেতরের স্তরে মেছতার সমস্যা রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে বেশ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

মেছতা দূর করার উপায় প্রাকৃতিক উপাদান এর ব্যবহারঃ

১. মেছতা সমস্যা সমাধানে আপনি মুখে নিয়মিত লেবুর রস ব্যবহার কর‍তে পারেন।

আরো পড়ুনঃ   মুখের দাগ দূর করার উপায়

নিয়মিত লেবুর রস ব্যবহারে মেছতার সমস্যা থেকে প্রাকৃতিক উপায়ে পরিত্রাণ পেতে পারেন।

২. গুড়া দুধ গ্লিসারিনের সাথে মিশিয়ে আপনি ত্বক এ লাগাতে পারেন। আপনি উপকার পেতে পারেন।

৩. আলুর পেস্ট করে তার সাথে এলোভেরা জেল মিশিয়ে ত্বক এ লাগাতে পারেন। উপকার পাবেন।

৪. এছাড়াও মধুর সাথে আপনি আমন্ড এর তেল মিশিয়ে ত্বক এ লাগাতে পারেন উপকার পাবেন।

৫. কমলালেবুর খোসা ছাড়িয়ে তা গুঁড়ো করে মধুর সাথে মিশিয়ে মেছতাতে লাগাতে পারেন। উপকার পাবেন।

৬. মেছতার দূরীকরণ এ লেবুর রসের সাথে সামান্য ভিনেগার মুখে লাগিয়ে রাখতে পারেন।

অনুগ্রহ করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।  আমাদের ফেসবুক পেইজ এ লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.