Categories
লাইফস্টাইল

চুল সোজা করার উপায়

চুল সোজা করার উপায় – নারীদের সৌন্দর্যের সব থেকে বেশি নজরকারা জিনিসটি হলো তাদের চুল। আর চুলের কথা বললেই মাথায় আসে ঘন কালো, লম্বা, সোজা চুলের।

যেকোনো দেশের সিনেমাতে, নাটকে, এমনকি কার্টুনেও যদি লক্ষ্য করা যায় তাহলে চোখে পরে প্রধান চরিত্র গুলোর চুল সবসময় সোজা, আর ভিলেনের চরিত্রে থাকে কোঁকড়ানো চুলের কেউ।

যা অনেক কোঁকড়ানো চুলের মেয়েদের হতাশ করে।

অনেকে কোঁকড়ানো চুল থেকে মুক্তির জন্য অনেক টাকা খরচ করেন, ব্যবহার করেন অনেক নামীদামী প্রসাধনী। কিন্তু ফলাফল বরাবরই হতাশাজনক।

কারণ এসব প্রসাধনী ব্যবহারে চুলের উপকারের থেকে ক্ষতিটাই বেশি হয়ে থাকে।

চুল সোজা করার উপায় –

চুলে রিবন্ডিং পদ্ধতি নির্ভর করে আপনার চুলের ধরন, লম্বায় কতটুকু এবং চুল পাতলা না ঘন তার উপর। তবে সাধারণত এই ব্যাপারটা একটু দীর্ঘই হয়, ৭-৮ ঘন্টা লাগে রিবন্ডিং করতে।

ভেজা চুল আঁচড়ান মোটা দাঁড়ার চিরুনি দিয়ে

এমনিতে ভেজা চুল মোটেও ব্রাশ করা উচিত নয়, গোছা গোছা চুল উঠে যেতে পারে। তাই ব্রাশের বদলে মোটা দাঁড়ার কাঠের চিরুনি বেছে নিন।

আরো পড়ুনঃ   আপেল সিডার ভিনেগার

মোটা দাঁড়ার চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ালে জট ছাড়়িয়ে নিতে পারবেন, চুল স্ট্রেট দেখাবে।

প্রথমে নিয়মমাফিক চুল শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন। তারপর তোয়ালে বা সুতির গেঞ্জি দিয়ে চুল চেপে চেপে মুছে বাড়তি জলটুকু শুষে নিন।

ভেজা চুলটা ছোট ছোট কয়েকটা ভাগে ভাগ করুন।

এক একটা ভাগ নিয়ে মোটা দাঁড়ার চিরুনি দিয়ে ধীরে ধীরে আঁচড়ান। চুল স্ট্রেট আর পরিচ্ছন্ন দেখাবে।

পাঁচ মিনিট অপেক্ষা করুন, তারপর আবার আঁচড়াতে থাকুন। যতক্ষণ না চুল পুরো শুকনো হচ্ছে, এভাবে আঁচড়াতে হবে।

বানানা হেয়ার প্যাক

দুটি ম্যাশড কলার সাথে দুই টেবিল চামচ মধু, দই এবং অলিভ অয়েল আর ১টি ডিমের সাদা অংশ মেশান।

এই প্যাক পুরো চুলে লাগিয়ে মাথায় একটি শাওয়ার ক্যাপ পরে ফেলুন।

তারপর ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এভাবেও আপনার চুল অনেকটা সোজা দেখাবে।

তেলের সংমিশ্রণ – উষ্ণ গরম অলিভ অয়েল, নারকেল তেল আর ক্যাস্টর অয়েল নিয়ে আধা কাপ মিশ্রণ তৈরি করুন।

এর সাথে আধা কাপ অ্যালোভেরা জেল মেশান, তারপর ৬ ফোঁটা এসেন্সিয়াল অয়েল মেশান। চুলের গোড়ায় লাগিয়ে ১-২ ঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন।

আরো পড়ুনঃ   গর্ভবতী হওয়ার প্রথম সপ্তাহের লক্ষণ সমূহ

সেলেরি

কয়েকটি ফ্রেশ সেলেরি পাতা ক্রাশ করে নিন এবং পানিতে মিশিয়ে দিন।

এরপর পানির ভেতর হাত দিয়ে পাতাগুলো আরও ভালো ভাবে কঁচলে নিন যেন পাতার নির্যাস পানিতে মিশে যায়।

তারপর মিশ্রণটি বোতলে সংরক্ষণ করে রাখুন ১ দিন।

এতে করে পাতার ভেতর চুল সোজা করার যে যে উপাদান আছে সব ভালো ভাবে ডেভেলপ করে।

প্রতিদিন গোসলের আগে স্ক্যাল্পে এই সলিউশন লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রাখুন তারপর শাম্পু করে ফেলুন।

যারা বিদেশে থাকেন তাদের জন্য এই উপাদানটি খুঁজে পাওয়া কোন ব্যাপার না।

কিন্তু আমার বাংলাদেশের সাজগোজ পাঠকদের হয়ত একটু সমস্যা হতে পারে। তাই আপনাদের অনুরোধ করবো আপনারা অন্য টিপস গুলো অনুসরন করুন।

অনুগ্রহ করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।  আমাদের ফেসবুক পেইজ এ লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.